পাদদেশীয় হিমবাহ কি?

সংজ্ঞাঃ হিমবাহ যখন উঁচু পর্বতের থেকে নেমে এসে পর্বতের পাদদেশে বিরাট অঞ্চল জুড়ে অবস্থান করে, তখন তাকে পাদদেশীয় হিমবাহ (Piedmont Glacier) বলে । উচ্চ অক্ষাংশে অবস্থিত পার্বত্য অঞ্চলের পাদদেশে উষ্ণতা কম থাকায় সহজেই পাদদেশীয় হিমবাহ সৃষ্টি হয় । উদাহরণঃ আলাস্কার মালাসপিনা হিমবাহটি হল পৃথিবীর বৃহত্তম পাদদেশীয় হিমবাহের উল্লেখযোগ্য উদাহরণ । এটি প্রায় ৪,০০০ বর্গ কিলোমিটার …

Read More….

মহাদেশীয় হিমবাহ কি?

সংজ্ঞাঃ মহাদেশের বিস্তীর্ণ অঞ্চল জুড়ে যে হিমবাহ অবস্থান করে, তাকে মহাদেশীয় হিমবাহ (Continental Glacier) বলে । এই মহাদেশীয় বরফস্তূপ পূর্বে কোয়াটারনারী বরফ – যুগে ( Quaternary Ice Age ) আরও অধিক বিস্তৃত হয়ে উত্তর আমেরিকা , ইউরােপ ও এশিয়া মহাদেশের উত্তর দিকের এক বিশাল অংশকে আবৃত করেছিল । বর্তমানে গ্রীনল্যাণ্ড ও অ্যান্টার্কটিকা মহাদেশের বরফস্তূপ কোয়াটারনারী …

Read More….

উপত্যকা হিমবাহ বা পার্বত্য হিমবাহ কি?

সংজ্ঞাঃ উচ্চ পর্বতশৃঙ্গ কিংবা অতি উচ্চ পার্বত্য অঞ্চলে প্রচন্ড ঠান্ডার জন্য তুষার জমে সৃষ্টি যেসব হিমবাহ পর্বতের উপত্যকার মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয় এবং যেসব হিমবাহ তাদের গতি প্রবাহকে পার্বত্য উপত্যকার মধ্যেই সীমাবদ্ধ রাখে, তাদের পার্বত্য হিমবাহ বা উপত্যকা হিমবাহ (Mountain Glacier / Valley Glacier) বলে । উদাঃ হিমালয়ের উত্তরে কারাকোরামের সিয়াচেন হিমবাহ (দৈর্ঘ্য ৭২ কিমি); …

Read More….

সিন্ধুকর্দম বা সিন্ধুমল কি? এর শ্রেণীবিভাগ কর।

গভীর সমুদ্রের সমভূমি এবং সমুদ্রখাতের সঞ্চয়কে সমুদ্রের গভীরতম অংশের সঞ্চয় বলা হয় । এখানকার অজৈব সঞ্চয়ের মধ্যে নিমজ্জিত আগ্নেয়গিরি থেকে নির্গত দ্রব্যসমূহ প্রধান । আগ্নেয়গিরি নির্গত সূক্ষ্ম উপাদান থেকে লােহিত কর্দম বা লাল কাদার সৃষ্টি হয় বলে এখানে প্রধানত লাল কাদাই দেখা যায় । জৈব উপাদান সমুদ্রের গভীরতম অংশের অপর একটি প্রধান সঞ্চয়জাত পদার্থ । …

Read More….

তরঙ্গ বিযুক্তি কয়প্রকার ও কি কি?

সাধারণত ভূ – অভ্যন্তরের মধ্য দিয়ে যখন ‘ P ‘ ও ‘ S ‘ তরঙ্গের প্রবাহ ঘটে , তখন আলােকতরঙ্গের মতাে প্রতিফলন ও প্রতিসরণ ঘটে । অর্থাৎ এক ঘনত্বের শিলাস্তর থেকে অন্য ঘনত্বের স্তরে প্রবাহের সময় ‘ P ‘ ও ‘ S ‘ তরঙ্গের গতিপথ পরিবর্তিত হয় , একে বিযুক্তি ( Discontinuity ) বলে । …

Read More….

সামুদ্রিক পাহাড় ও গায়ট কি?

সংজ্ঞাঃ শঙ্কু আকৃতিবিশিষ্ট আগ্নেয় পাহাড় যেগুলি জলের নিচে অবস্থান করে তাকে সামুদ্রিক পাহাড় বা Seamounts বলে । এগুলি মৃত আগ্নেয়গিরির অংশ । সিমাউন্ট শঙ্কু আকৃতিবিশিষ্ট না হয়ে চ্যাপ্টা হলে তাকে গায়ট বলে । শঙ্কু আকৃতির আগ্নেয় দ্বীপ সমুদ্রতরঙ্গের আঘাতে ক্ষয় হয়ে জলতলের নিচে অবস্থান করে গায়টে পরিণত হয় । সামুদ্রিক পাহাড় ও গায়ট আসলে ডুবাে …

Read More….

গভীর সমুদ্রখাত কি?

সংজ্ঞাঃ গভীর সমুদ্রের সমভূমি অঞ্চলের স্থানে স্থানে গভীর খাত দেখতে পাওয়া যায়, যা গভীর সমুদ্রখাত নামে পরিচিত । এই গভীর সমুদ্রখাতগুলি সমুদ্রতলের প্রান্তভাগে অত্যন্ত গভীর , সংকীর্ণ ও দীর্ঘ অবস্থায় লক্ষ করা যায় । উৎপত্তিঃ পাতসংস্থান মতবাদ অনুযায়ী একটি মহাদেশীয় পাত এবং একটি সামুদ্রিক পাতের মুখােমুখি সংঘর্ষের ফলে সামুদ্রিক পাতগুলি মহাদেশীয় পাতের নিচে নিমজ্জিত হয় …

Read More….

গভীর সমুদ্রের সমভূমি কি?

সংজ্ঞাঃ মহীঢাল গভীর সমুদ্রের যেখানে এসে মিলিত হয়েছে , সেই অঞ্চলকে গভীর সমুদ্রের সমভূমি বলা হয় । এই অঞ্চলকে প্রকৃতপক্ষে ‘ সময় ভূমি ’ বলা চলে । ফলে কিছু কিছু অংশ বেশি উচু নিচু ও তরঙ্গায়িত । এই গভীর সমুদ্রের সমভূমিতে স্থানে স্থানে নিমজ্জিত শৈলশিরা লক্ষ করা যায় । দুটি সামুদ্রিক পাতের সংযােগস্থলে গুরুমণ্ডলের ম্যাগমা …

Read More….

সামুদ্রিক শৈলশিরা কি?

সংজ্ঞাঃ মহাসাগরগুলাের তলদেশে অসংখ্য নিমজ্জিত আগ্নেয়গিরি অবস্থান করছে । ভূ – গর্ভস্থিত ম্যাগমা মহাসাগরগুলাের তলদেশের ফাটল দিয়ে অগ্ন্যুৎপাতের মাধ্যমে বেরিয়ে এসে সমুদ্রের তলদেশে সারি সারি দীর্ঘ ও উচ্চ আকৃতির ভূমিরূপ সৃষ্টি করে । এদের সামুদ্রিক শৈলশিরা ( Ridge ) বলে । প্রতিটি মহাসাগরে এই শৈলশিরাগুলি জলমগ্ন অবস্থায় থাকে বলে এদের নিমগ্ন শৈলশিরা ( Submarine Ridges …

Read More….

সমুদ্রকে রত্নাকর বলা হয় কেন ?

‘ রত্নাকর ’ শব্দের অর্থ হল ‘ রত্নের আকর ’ অর্থাৎ বিভিন্ন প্রকার রত্নের ভাণ্ডার । সমুদ্রের তলদেশে – মহীসােপান , মহীঢাল , গভীর সমুদ্রের সমভূমিতে বিপুল পরিমাণ মূল্যবান খনিজ সম্পদ সঞ্চিত রয়েছে । সমুদ্রের তলদেশে পাললিক শিলাস্তর সঞ্চিত হওয়ার সময় ফোরামিনিফেরা নামক একপ্রকার অতি ক্ষুদ্র সামুদ্রিক প্রাণীর দেহাবশেষ ও অন্যান্য সামুদ্রিক প্রাণীও শিলাস্তরে চাপা পড়ে …

Read More….