মহীঢাল (Continental slope):

  • সংজ্ঞাঃ মহীসোপানের প্রান্তভাগ থেকে শুরু করে সমুদ্রজলে নিমজ্জিত মোটামুটি ২০০ – ২০০০ মিটার (স্থানবিশেষে ৪৫০০ মিটার) গভীরতা পর্যন্ত খাড়া ঢালু সমুদ্রভাগকে মহীঢাল (Continental Slope) বলে ।
মহীঢাল (Continental Slope)
  • বৈশিষ্ট্যঃ মহীঢাল – এর বৈশিষ্ট্যগুলি হলো নিম্নরূপ –
    • ঢালঃ এটি খাড়া ঢাল বিশিষ্ট । সাধারণত এর গড় ঢাল ৫° এর কাছাকাছি হলেও স্থান বিশেষে এর তারতম্যও হতে পারে; যেমন – পার্বত্য উপকূলে এই ঢালের পরিমাণ ২৫° পর্যন্ত হতে পারে ।
    • গভীরতাঃ মহীঢালের গভীরতা ২০০ – ২০০০ মিটার, তবে স্থান বিশেষে তা ৪৫০০ মিটার পর্যন্তও হতে পারে ।
    • বিস্তারঃ মহীঢাল অঞ্চল সমগ্র সমুদ্রতলের প্রায় ৮.৫ শতাংশ স্থান জুড়ে অবস্থান করছে ।
    • সঞ্চিত পদার্থসমূহঃ মহীসোপান অঞ্চলের তুলনায় এই অঞ্চলে সঞ্চিত পদার্থসমূহ অতি সূক্ষ্ম হয় । শিলাখন্ড (১০ শতাংশ), বালি (২৫ শতাংশ), শৈবাল ও সামুদ্রিক কর্দম (৫ শতাংশ) প্রভৃতি এই অঞ্চলে সঞ্চিত হলেও কর্দম (৬০শতাংশ) বেশী পরিমাণেই পরিলক্ষিত হয় ।
  • অর্থনৈতিক গুরুত্বঃ খাড়া ঢাল হওয়ার জন্য মহীঢাল অঞ্চলে সামুদ্রিক সঞ্চয়ের পরিমাণ খুবই কম । তাই এই অঞ্চলের অর্থনৈতিক গুরুত্বও অপেক্ষাকৃত কম ।
    • এই অঞ্চলে লাল, নীল ও সবুজ রঙের প্রবাল পাওয়া যায় ।
    • এখানে পাইরাইট, গ্লুকোনাইট প্রভৃতি খনিজ পাওয়া যায় ।

One comment

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s