বহুমুখী নদী উপত্যকা পরিকল্পনা কি?

সংজ্ঞাঃ যে প্রকল্পে বিভিন্ন গঠনমূলক উদ্দেশ্যে নদীতে বাঁধ দিয়ে বাঁধের পশ্চাতে জল সঞ্চিত করে আবশ্যকমত তা কৃষিজমিতে সেচের জন্য খাল মাধ্যমে প্রেরণ করে কৃষিকার্যের প্রসার , শিল্প বিকাশের জন্য বাঁধের পশ্চাতে সঞ্চিত জল থেকে জলবিদ্যুৎ উৎপাদন , বন্যা নিয়ন্ত্রণ , মৎস্যচাষ , খাল মাধ্যমে নৌ – চলাচল , ভূমি ও বন সংরক্ষণ , জলক্রীড়া ও …

Read More….

ভারতের হ্রদের শ্রেণীবিভাগ কর।

ভারতের হ্রদের শ্রেণীবিভাগ মূলত দুই প্রকার । যথা – ক) উৎপত্তি অনুসারে ও খ) প্রকৃতি অনুসারে । নিচে এদের সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হল –ক) উৎপত্তি অনুসারে হ্রদের শ্রেণীবিভাগঃ উৎপত্তি অনুসারে ভারতের হ্রদগুলি মুলত সাত প্রকার । যথা – ১. নদী দ্বারা সৃষ্ট হ্রদঃ নিম্নগতিতে নদী আঁকাবাঁকা পথে অগ্রসর হয়ে ঘােড়ার ক্ষুরের আকার নিয়ে অশ্বক্ষুরাকৃতি …

Read More….

ভারতের জনজীবনে নদ নদীর গুরুত্ব লেখ।

ভারত একটি নদীমাতৃক দেশ । ভারতের জনজীবনে নদ নদীর গুরুত্ব অপরিসীম । নিচে এগুলি সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হল  –১. সভ্যতার পত্তনঃ ভারতবর্ষে নদীকে কেন্দ্র করেই প্রাচীন সভ্যতাগুলির বিকাশ ঘটেছিল । উদাহরণ – ভারতে সিন্ধু নদীকে কেন্দ্র করে সিন্ধু সভ্যতার বিকাশ ঘটে । ২. কৃষিকাজে সহায়তাঃ ভারতের নদীগুলির বিস্তৃত অববাহিকার উর্বর পলিমাটি কৃষিকাজের পক্ষে আদর্শ …

Read More….

হিমালয়ের নদীবিন্যাসের ক্রমবিবর্তন লেখ।

হিমালয় সম্পর্কে জানার শুরুতেই এই উল্লেখযোগ্য পর্বতমালার নদীগুলিও ভূ – বিজ্ঞানীদের গবেষণার বিষয় হয়ে ওঠে । বিশেষতঃ তিব্বত মালভূমিতে উৎপন্ন সিন্ধু , সাংপাে ও শতদ্রু এই তিনটি নদীই এখানে প্রধান তাৎপর্যপূর্ণ । যদিও এই নদীগুলি ছাড়া আরও অন্যান্য নদী সুউচ্চ ও বহু শিখরমণ্ডিত পর্বতমালাকে অতিক্রম করে প্রবাহিত হচ্ছে । নিচে হিমালয়ের নদীবিন্যাসের ক্রমবিবর্তন সম্পর্কে আলোচনা …

Read More….

দক্ষিণ ভারতের নদ নদী সম্পর্কে লেখ।

দক্ষিণ ভারত বা ভারতের উপদ্বীপ অঞ্চলের নদীগুলি প্রধানতঃ দক্ষিণ ভারতের প্রধান জলবিভাজিকা সহাদ্রি বা পশ্চিমঘাট পর্বত এবং বিন্ধ্য , মহাদেব , মহাকাল , সাতপুরা প্রভৃতি গৌণ জলবিভাজিকা থেকে উৎপন্ন হয়েছে । এই অঞ্চলের নদীগুলির মধ্যে বঙ্গোপসাগরে পতিত পূর্ববাহিনী নদী সুবর্ণরেখা , ব্রাহ্মণী , বৈতরণী , মহানদী , গোদাবরী , কৃষ্ণা ও কাবেরী এবং আরবসাগরে পতিত …

Read More….

উত্তর ভারতের নদ নদী সম্পর্কে লেখ।

ভারত একটি নদীমাতৃক দেশ । বহু প্রাচীনকাল থেকেই এই সকল নদ – নদীর তীরে ভারতীয় সভ্যতা , সংস্কৃতি ও কৃষ্টির বিকাশ ঘটেছিল । দেশের বিভিন্ন অঞ্চল দিয়ে বহু নদ – নদী প্রবাহিত এবং এদের চরিত্রও বিভিন্ন ধরনের । উত্তরে হিমালয় অঞ্চল থেকে আসা নদীগুলি বরফগলা জলে পুষ্ট বলে সারাবছরই প্রবাহিত হয় । কিন্তু উপদ্বীপ অঞ্চলের …

Read More….

ভারতের দ্বীপ অঞ্চলের গুরুত্ব লেখ।

ভারতের দ্বীপ অঞ্চলের গুরুত্ব গুলি নিম্নে আলােচনা করা হল –১. মৎস্য সংগ্রহঃ ভারতের দ্বীপ অঞ্চলগুলি আদর্শ মৎস্য সংগ্রহ ক্ষেত্র । এখানকার অধিবাসীদের প্রধান জীবিকাই হল এই মৎস্য আহরণ করা ।২. কৃষিকাজের প্রসারঃ বহু দ্বীপ প্রবাল দ্বারা গঠিত হওয়ায় মৃত্তিকা খুবই উর্বর । ফলে কৃষিকাজের প্রাধান্য দেখা যায় । বহু নারকেল বাগিচাও এই অঞ্চলে গড়ে উঠেছে …

Read More….

ভারতের উপকূলীয় সমভূমির গুরুত্ব আলােচনা কর।

ভারতের জনজীবনে সুদীর্ঘ উপকূলীয় সমভূমির গুরুত্ব অপরিসীম । নিচে সেগুলি বিস্তারিত আলোচনা করা হল –১  কৃষিকাজের প্রসারঃ : উপকুলের উর্বর সমভূমিতে বিশেষ করে পূর্ব উপকূলের নদীগঠিত বদ্বীপ অঞ্চলে প্রচুর ধান ও অন্যান্য ফসল উৎপন্ন হয় । এছাড়াও, সমুদ্র উপকূলে নারকেল , সুপারি , তাল , বিভিন্ন মশলা প্রভৃতি উৎপন্ন হয় । ২. খনিজ সম্পদ আহরণঃ …

Read More….

ডেকান ট্র্যাপ কি?

সংজ্ঞাঃ উত্তর দাক্ষিণাত্য মালভূমি অঞ্চলের এক বিস্তীর্ণ লাভাগঠিত অংশ টেবিলের মত মাথাবিশিষ্ট হয়ে পশ্চিম ও উত্তর – পশ্চিম দিক থেকে পূর্ব ও দক্ষিণ – পূর্ব দিকে সিঁড়ির মত ধাপে ধাপে উপর থেকে নীচে নেমে গেছে । একে ডেকান ট্র্যাপ ( Deccan Trap ) বলা হয় । ইংরেজি ‘ Deccan ‘ শব্দের অর্থ দক্ষিণপ্রান্ত এবং সুইডিশ …

Read More….

ভারতের দ্বীপপুঞ্জ সম্পর্কে লেখ।

ভারতের দ্বীপপুঞ্জকে মূলত দুটি ভাগে ভাগ করা হয় । যথা – ক) পূর্ব উপকূলের বঙ্গোপসাগরীয় দ্বীপপুঞ্জ ও খ) পশ্চিম উপকূলের আরবসাগরীয় দ্বীপপুঞ্জ । নিচে এদের নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হল –ক) বঙ্গোপসাগরীয় দ্বীপপুঞ্জঃ ভারতের পূর্ব উপকূলে বঙ্গোপসাগরের দ্বীপ ও দ্বীপপুঞ্জগুলাের মধ্যে আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জই প্রধান । এছাড়া বঙ্গোপসাগরে আন্দামান দ্বীপপুঞ্জ ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জের পূর্বদিকে …

Read More….