Category Archives: গ) বায়ুচাপ বলয় ও বায়ুপ্রবাহ

রসবি তরঙ্গ (Rossby Winds):

☻ সংজ্ঞাঃ ট্রপোস্ফিয়ারে ভূপৃষ্ঠ থেকে ৫০০ মিটার উপরে ৫০০০ – ৬০০০ কিলোমিটার তরংগদৈর্ঘ্যবিশিষ্ট একপ্রকার বায়ুপ্রবাহ সর্পিলাকারে উচ্চগতিতে পশ্চিম থেকে পূর্ব দিকে প্রবাহিত হয় । এটি রসবি তরঙ্গ (Rossby Winds) নামে পরিচিত ।

নামকরণঃ ১৯৩০ এর দশকের শেষভাগে বিশিষ্ট আবহাওয়া বিজ্ঞানী C.G. Rossby সর্বপ্রথম এইপ্রকার বায়ুপ্রবাহের উপস্থিতি পর্যবেক্ষণ করেন এবং গাণিতিক উপায়ে এর ব্যাখ্যা দেন বলে তাঁর নামানুসারে এইপ্রকার বায়ুপ্রবাহের নামকরণ রসবি তরঙ্গ (Rossby Winds) করা হয়েছে ।

অবস্থানঃ ৫০০ মিটার উচ্চতার উপরে উভয় গোলার্ধে রসবি তরঙ্গ প্রবাহিত হয় ।

উৎপত্তিঃ উচ্চাকাশের ঊর্দ্ধবায়ুতে মূলত: দুটি শক্তি ক্রিয়াশীল থাকে; যথা – বায়ুচাপের অবক্রমজনিত শক্তি ও কোরিওলিস বল । ঊর্দ্ধবায়ুতে এই দুই শক্তির পরিমাণ সমান এবং তারা পরস্পরের বিপরীতদিকে ক্রিয়া করে । ফলে এই দুই শক্তির মধ্যে সামঞ্জস্য বাধিত হয়ে সমচাপরেখার সাথে সমান্তরালভাবে প্রবাহিত জিওস্ট্রফিক বায়ু উৎপত্তি লাভ করে । কিন্তু, ভূপৃষ্ঠতল থেকে আধা কিলোমিটার উচ্চতায় উল্লিখিত দুইপ্রকার শক্তির পারস্পরিক ভারসাম্য বিঘ্নিত হওয়ার কারণে জিওস্ট্রফিক বায়ুপ্রবাহের বর্ধিত অংশ রসবি তরঙ্গরূপে সর্পিলাকারে আঁকাবাঁকা পথে প্রবাহিত হতে থাকে ।

বৈশিষ্ট্যঃ রসবি তরঙ্গ – এর বৈশিষ্ট্যগুলি হলো নিম্নরূপ –
ক) উভয় গোলার্ধেই ৩ – ৬ টি করে রসবি তরঙ্গ প্রবাহিত হয় ।
খ) এটি জিওস্ট্রফিক বায়ুপ্রবাহের বর্ধিত অংশ, যা ভূপৃষ্ঠের সাথে সমান্তরালে প্রবাহিত না হয়ে সর্পিলাকারে বা আঁকাবাঁকা পথে প্রবাহিত হয় ।

« অপেক্ষাকৃত পুরনো জমা Recent Entries »