খনিজ (Minerals) কি?

খনিজ অর্থাৎ ‘খনি থেকে জাত’; সুতরাং খনি থেকে উত্তোলিত সকল দ্রব্যই খনিজ ।

অন্যভাবে বলা যায়, প্রকৃতি থেকে প্রাপ্ত বস্তুসমূহ যাদের রাসায়নিক উপাদান ও পারমাণবিক গঠন সুনির্দিষ্ট এবং যেগুলি অজৈব প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে সৃষ্ট, তাদের খনিজ (Minerals) বলে ।

আবার, যে সব খনিজ দ্রব্যের কার্যকারিতা আছে, তাদের খনিজ সম্পদ (Mineral Resource) বলে ।

উদাহরণঃ লৌহ আকরিক, ম্যাংগানিজ, অভ্র, তামা প্রভৃতি ।

বৈশিষ্ট্যঃ খনিজ – এর বৈশিষ্ট্যগুলি হলো নিম্নরূপ –

  • ক) যে কোনও খনিজ পদার্থই গচ্ছিত সম্পদ, ক্রমাগত ব্যবহারের ফলে উত্তরোত্তর যার পরিমান কমে যায় ।
  • খ) খনিজের পুনঃস্থাপন করা যায় না ।
  • গ) কিছু খনিজ একবার ব্যবহারের ফলেই শেষ হয়ে যায় (যেমন – কয়লা, খনিজ তেল প্রভৃতি), আবার কিছু খনিজের পুনঃব্যবহার সম্ভব (যেমন – তামা, রূপা প্রভৃতি) ।
  • খনিজ পদার্থ প্রকৃতিতে স্বতস্ফূর্তভাবে সুনির্দিষ্ট প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে সৃষ্টি হয় ।
  • কিছু খনিজ পদার্থ (যেমন – কয়লা, খনিজ তেল প্রভৃতি) জৈব উপাদানে গঠিত হলেও অধিকাংশ খনিজই অজৈব উপাদানে গঠিত (যেমন – তামা, নিকেল প্রভৃতি) ।
  • খনিজের প্রাপ্যতা অনেক ক্ষেত্রেই আঞ্চলিক ভূপ্রকৃতি ও জলবায়ুর উপর নির্ভর করে ।