GPS কি?

সংজ্ঞাঃ কৃত্রিম উপগ্রহের সাহায্যে পৃথিবী পৃষ্ঠের কোনাে স্থানের অক্ষাংশ ও দ্রাঘিমা নির্ণয়ের মাধ্যমে অবস্থান নির্ণয়ের পদ্ধতিকে GPS ( Global Positioning System ) বলে । উদাহরণঃ ১৯৭৮ সালের ২২ শে ফেব্রুয়ারী আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্র সামরিক প্রয়ােজনে প্রথম এই পদ্ধতি ব্যবহার করে । তাদের ব্যবহৃত ২৪ টি উপগ্রহ একত্রে ‘ NAVSTAR ‘ নামে পরিচিত । এছাড়াও, চীনের BeiDou …

Read More….

দূর সংবেদন বা রিমােট সেন্সিং কি?

সংজ্ঞাঃ যে উন্নত বৈজ্ঞানিক প্রযুক্তি বা কলাকৌশলের সাহায্যে ভূপৃষ্ঠের কোনাে বস্তু বা উপাদানকে স্পর্শ না করে দূর থেকে তার সম্বন্ধে তথ্য আহরণ এবং তথ্য বিশ্লেষণের মাধ্যমে ওই বস্তু বা উপাদান সম্পর্কে ধারণা লাভ করা হয় , তাকে দূর সংবেদন বা রিমােট সেন্সিং ( Remote Sensing ) বলে । বুৎপত্তিগত অর্থঃ ইংরেজি ‘ Remote ‘ কথার …

Read More….

উপগ্রহ চিত্রের ব্যবহার ও গুরুত্ব লেখ।

উপগ্রহ চিত্রের ব্যবহার ও গুরুত্ব গুলি নিম্নরূপ –১. সম্পদ নিরীক্ষণঃ ভূপৃষ্ঠের প্রাকৃতিক সম্পদ নিরীক্ষণ ও সম্পদের বণ্টনের প্রকৃতি নিরূপণে ভূপৃষ্ঠস্থ তথা ভূগর্ভস্থ জলসম্পদ মূল্যায়নে , জলদূষণ চিহ্নিতকরণে ব্যবহার করা হয় । এ ছাড়া , কোনাে অঞ্চলের ভূগর্ভস্থ ও সামুদ্রিক খনিজ সম্পদ অনুসন্ধানে , স্বাভাবিক উদ্ভিদের আচ্ছাদন চিহ্নিতকরণেও উপগ্রহ চিত্র বিশেষ সাহায্য করে । ২. আবহাওয়ার …

Read More….

উপগ্রহ চিত্র তােলার বিভিন্ন পর্যায় লেখ।

উপগ্রহ চিত্র তােলার বিভিন্ন পর্যায় গুলি হল নিম্নরূপ –১. কৃত্রিম উপগ্রহ প্রতিস্থাপনঃ উপগ্রহ চিত্র তােলার প্রাথমিক পর্যায় হল মহাকাশে নির্দিষ্ট প্ল্যাটফর্মে কৃত্রিম উপগ্রহের প্রতিস্থাপন করা । এই উপগ্রহে থাকা ক্যামেরা বা সেন্সর তথ্য সংগ্রহে বিশেষ ভূমিকা পালন করে । যেমন সম্প্রতি ২০১৫ সালে অন্ধ্রপ্রদেশের শ্রীহরিকোটা থেকে PSLV – ৩০ রকেটে করে ‘ ASTROSAT ‘ নামক …

Read More….

ছদ্মরঙ বা FCC কি?

সংজ্ঞাঃ উপগ্রহ চিত্র প্রস্তুত করার সময় লক্ষ্যবস্তুর প্রকৃত রঙের বহিঃপ্রকাশ না করে যদি অন্য রং দ্বারা প্রকাশ করা হয় , তবে তাকে ছদ্মরঙ বা FCC বলে ।  FCC- এর পুরাে কথা হল False Colour Composite । উদাহরণঃ যেমন – IRS1A স্যাটেলাইটের BAND ও FCC গুলি হল পর্যায়ক্রমে নিম্নরূপ –নীল > সবুজসবুজ > লাললাল > অবলোহিত …

Read More….

উপগ্রহ চিত্রের বৈশিষ্ট্য লেখ।

উপগ্রহ চিত্রের বৈশিষ্ট্য গুলি হল নিম্নরূপ –১. দূর সংবেদন ব্যবস্থাঃ কৃত্রিম উপগ্রহে সংস্থাপিত সংবেদকের সাহায্যে দূর থেকে বস্তুর সংস্পর্শে না এসে সংগৃহীত তথ্য থেকে উপগ্রহ চিত্র পাওয়া যায় । ২. ভিজিটাল তথ্যসংগ্রহঃ প্রত্যেক বস্তুই নির্দিষ্ট তরঙ্গদৈর্ঘ্যবিশিষ্ট শক্তি বিকিরণ করে যা কৃত্রিম উপগ্রহের সেন্সর ডিজিটাল আকারে গ্রহণ করে । ৩. তথ্য সংরক্ষণঃ দূর সংবেদন ব্যবস্থায় পাওয়া …

Read More….

সেন্সর কি?

সংজ্ঞাঃ মহাকাশ থেকে ভূপৃষ্ঠের কোনো নির্দিষ্ট লক্ষ্যবস্তুর দ্বারা প্রতিফলিত আলোকতরঙ্গ গ্রহণ করে ওই বস্তুর বৈশিষ্ট্যাবলী তুলে ধরে যে বিশেষ যন্ত্র বা ডিভাইস ( Device ) , তাকে সেন্সর ( Sensor ) বলে । উদাহরণঃ র‍্যাডার , ফটোগ্রাফিক ক্যামেরা প্রভৃতি । শ্রেণীবিভাগঃ আলোর উৎস অনুসারে সেন্সরকে মূলত দুটি ভাগে ভাগ করা হয় । যথা –১. সক্রিয় …

Read More….

ভূসমলয় উপগ্রহ বা জিওস্টেশনারি উপগ্রহ কি?

সংজ্ঞাঃ পৃথিবীর উপর অবস্থিত কোনো স্থানের সাথে সামঞ্জস্য রেখে পৃথিবীর আবর্তন গতির সাথে সমান গতিতে যে সকল কৃত্রিম উপগ্রহগুলি পৃথিবীর চারিদিকে পরিক্রমণ করে , তাদের ভূসমলয় উপগ্রহ বা জিওস্টেশনারি উপগ্রহ (Geostationary Satellite) বলে । উদাহরণঃ ভারতের ইনস্যাট সিরিজের স্যাটেলাইট , আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের GOES , জাপানের GMS প্রভৃতি । বৈশিষ্ট্যঃ ভূসমলয় উপগ্রহ – এর বৈশিষ্ট্যগুলি হল …

Read More….

সূর্যসমলয় উপগ্রহ বা সানসিনক্রোনাস উপগ্রহ কি?

সংজ্ঞাঃ উত্তর থেকে দক্ষিণ মেরু কক্ষপথে সূর্যের সাথে আপাত কৌণিক সামঞ্জস্য রেখে যে সকল কৃত্রিম উপগ্রহগুলি পৃথিবীকে পরিক্রমণ করে চলেছে , তাদের সূর্যসমলয় উপগ্রহ বা সানসিনক্রোনাস উপগ্রহ ( Sun-synchronous Satellite ) বলে । উদাহরণঃ ভারতের IRS সিরিজের স্যাটেলাইট , ফ্রান্সের SPOT , আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের LANDSAT সিরিজের স্যাটেলাইট প্রভৃতি । বৈশিষ্ট্যঃ সূর্যসমলয় উপগ্রহ – এর বৈশিষ্ট্যগুলি …

Read More….

ভূ-বৈচিত্রসূচক মানচিত্র বা ভূ-বিবরণী মানচিত্র

সংজ্ঞাঃ কোনো একটি অঞ্চলের সঠিক অবস্থান, আয়তন এবং প্রাকৃতিক বিষয়াবলী (ভূ-প্রকৃতি, নদনদী ও স্বাভাবিক উদ্ভিদ) ও সাংস্কৃতিক বিষয়াবলী (পরিবহন-যোগাযোগ, জনবসতি) কে বিভিন্ন প্রচলিত প্রতীকচিহ্ন দ্বারা পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে চিত্রায়িত করে যে মানচিত্র প্রস্তুত করা হয়, তাকে ভূ-বৈচিত্রসূচক মানচিত্র বা ভূ-বিবরণী মানচিত্র (Topographical Map) বলে । “Topographical” শব্দটি উৎপত্তিলাভ করেছে গ্রীক শব্দ “Topos” যার অর্থ স্থান ও “Graphos” …

Read More….