হিমালয়ের গিরিপথ সম্পর্কে লেখ।

হিমালয় অতিক্রম করা খুবই কষ্টকর , কারণ যে সকল হিমালয়ের গিরিপথ আছে সেগুলি অত্যন্ত সংকীর্ণ এবং সারা বৎসর তুষারপাতের ফলে দুর্গম থাকে । নিচে হিমালয়ের গিরিপথগুলোর নাম ও গন্তব্য তুলে ধরা হল –১. হিমাচল প্রদেশের কুলু উপত্যকা থেকে মানালি হয়ে রােহটাং ( ৪,৮০০ মিঃ ) ও বরলাচা ( ৪,৮০০ মিঃ ) গিরিপথ দিয়া লেহ শহরে …

Read More….

হিমালয়ের গুরুত্ব বা প্রভাব লেখ।

হিমালয়ের গুরুত্ব বা প্রভাব গুলি হল নিম্নরূপ –১. শৈত্যপ্রবাহ প্রতিরোধঃ সুউচ্চ হিমালয় পর্বতমালা ভারতের উত্তরে নিরবচ্ছিন্নভাবে পূর্ব – পশ্চিমে বিস্তৃত হওয়ায় , শীতকালে হিমালয়ের উত্তর দিক থেকে শীতল বায়ু ভারতের অভ্যন্তরে প্রবেশ করতে পারে না । ফলে গাঙ্গেয় সমভূমিতে পৃথিবীর সম – অক্ষাংশে অবস্থিত অন্যান্য স্থান অপেক্ষা শীতের তীব্রতা কম , বরং কিছুটা উষ্ণভাবাপন্ন ।২. …

Read More….

ছিটমহল কি?

সংজ্ঞাঃ পাশাপাশি অবস্থিত দুটি প্রতিবেশী দেশের মধ্যে যখন একটি দেশের কিছু ছােটো ছােটো জনপদ বা এলাকা অপর দেশের সীমানার মধ্যে থেকে যায় তখন ওই অঞ্চলকে ওই প্রতিবেশী দেশের ছিটমহল বলে । ছিটমহল সৃষ্টিঃ ইংরেজ শাসনের অবসানের পর ১৯৪৭ সালে ভারত ভাগের সময় র‍্যাডক্লিফের মানচিত্র বিভাজনের মধ্য দিয়ে ছিটমহলের উৎপত্তি । তৎকালীন ভারতের কোচবিহারের কোচরাজার জমিদারির …

Read More….

তিন বিঘা করিডর কি?

পরিচিতিঃ দুটি প্রতিবেশী দেশ যখন পারস্পরিক আলােচনার মাধ্যমে একটি দেশের অভ্যন্তরে থাকা অন্যদেশের এলাকার সঙ্গে যােগাযােগ রক্ষার জন্য অন্যদেশকে শর্তসাপেক্ষে নির্দিষ্ট স্থান ব্যবহারের অনুমতি দেয় , তখন ওই নির্দিষ্ট স্থানকে করিডর বলে । পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহার জেলার সীমান্তে মেখলিগঞ্জ কুচলি বাড়ি অঞ্চলে ১৭৮ মিটার দীর্ঘ ও ৮৫ মিটার প্রশস্ত স্থান ১৯৯২ সালে ২৬ শে জুন ভারত …

Read More….

ভারতের ভৌগােলিক অবস্থানের গুরুত্ব লেখ।

ভারত এশিয়া মহাদেশের দক্ষিণে , প্রায় মধ্যভাগে একটি ত্রিভুজাকৃতি উপদ্বীপের ( Peninsula ) অংশরূপে অবস্থান করছে । এই উপদ্বীপের তিনদিক বেষ্টন করে আছে তিনটি সমুদ্র , যথা : পূর্বে বঙ্গোপসাগর , পশ্চিমে আরব সাগর এবং দক্ষিণে ভারত মহাসাগর । ভারতের তিনদিক সাগর – বেষ্টিত হওয়ায় জলপথে ব্যবসা – বাণিজ্যের সুবিধা হয়েছে । উত্তরে হিমালয় , …

Read More….

ভারতকে বৈচিত্র্যপূর্ণ দেশ বলা হয় কেন?

ভারতকে ‘ বৈচিত্র্যপূর্ণ দেশ ’ বলা হয় । এর কারণগুলি হল নিম্নরূপ –১. ভৌগােলিক বৈচিত্র‍্যঃ ভারতের উত্তর দিক বরাবর অবস্থান করছে ভঙ্গিল পর্বতমালা হিমালয় ; দক্ষিণ , পূর্ব ও পশ্চিম দিকে যথাক্রমে ভারত মহাসাগর , বঙ্গোপসাগর ও আরব সাগর এবং মধ্যভাগে রয়েছে । | বিশাল সমভূমি ও মালভূমির সমাহার , পশ্চিম দিকে রয়েছে মরুভূমি । …

Read More….

ভারতকে উপমহাদেশ বলা হয় কেন?

ভারতকে উপমহাদেশ বলা হয় । এর কারণগুলি হল নিম্নরূপ –১. আয়তনের ব্যাপকতাঃ ভারতের আয়তন প্রায় ৩২,৬৭,৫০০ বর্গকিলোমিটার, যা প্রায় মহাদেশের মতাে বলে একে উপমহাদেশ বলা হয় । ২. ভূপ্রাকৃতিক বৈচিত্র‍্যঃ ভারতে নবীন ভঙ্গিল পর্বতমালা হিমালয়ের সঙ্গে সঙ্গে প্রাচীন ভঙ্গিল পর্বত আরাবল্লির সহাবস্থান রয়েছে । আবার , অতি প্রাচীন শিলাগঠিত দাক্ষিণাত্য মালভূমির পাশাপাশি নদীর পলিগঠিত সমভূমিও বর্তমান …

Read More….

ভারত ও তার প্রতিবেশী দেশগুলি সম্পর্কে লেখ।

ভারতের স্থলভাগের তিনদিক বেষ্টন করে আছে এশিয়ার কতকগুলি দেশ । ভারতের এই পার্শ্ববর্তী দেশসমূহের মধ্যে উত্তরে আছে চীন সাধারণতন্ত্র এবং হিমালয়ের পার্বত্য ক্ষুদ্র রাজ্য নেপাল , ভুটান । পূর্বদিকে বাংলাদেশ, মায়ানমার । পশ্চিমে আছে পাকিস্তান । অপর প্রতিবেশী রাষ্ট্র শ্রীলঙ্কা ভারতের ঠিক দক্ষিণেই অবস্থিত । এছাড়া আফগানিস্তান , ইরাণ , ইরাক , সৌদি আরব , …

Read More….

ভারতের ভৌগোলিক অবস্থান ও আয়তন লেখ।

ভারত এশিয়া মহাদেশের দক্ষিণে , প্রায় মধ্যভাগে একটি ত্রিভুজাকৃতি উপদ্বীপের ( Peninsula ) অংশরূপে অবস্থান করছে । এই উপদ্বীপের তিনদিক বেষ্টন করে আছে তিনটি সমুদ্র , যথা : পূর্বে বঙ্গোপসাগর , পশ্চিমে আরব সাগর এবং দক্ষিণে ভারত মহাসাগর । ভারতের তিনদিক সাগর – বেষ্টিত হওয়ায় জলপথে ব্যবসা – বাণিজ্যের সুবিধা হয়েছে । উত্তরে হিমালয় , …

Read More….

জলবিভাজিকা উন্নয়ন কি?

নদী অববাহিকা অঞ্চলের উন্নতির লক্ষ্যে জলবিভাজিকাসংক্রান্ত প্রাকৃতিক ও মানবিক সম্পদের সামগ্রিক উন্নয়নই হল জলবিভাজিকা উন্নয়ন । এই উন্নয়ন পরিকল্পনার মাধ্যমে কোনাে নদী অববাহিকা অঞ্চলের বাস্তুতন্ত্র , পরিবেশের উপাদান এবং সম্পদের স্থায়ী উন্নয়ন করা যায় । গুরুত্ব: জলবিভাজিকা উন্নয়ন – এর গুরুত্বগুলি নিম্নরূপ –(১) জলবিভাজিকার মাধ্যমে নদী অববাহিকা অঞ্চলগুলিকে চিহ্নিত করা যায় । এটি একটি প্রাকৃতিক …

Read More….