দূর সংবেদন বা রিমােট সেন্সিং কি?

সংজ্ঞাঃ যে উন্নত বৈজ্ঞানিক প্রযুক্তি বা কলাকৌশলের সাহায্যে ভূপৃষ্ঠের কোনাে বস্তু বা উপাদানকে স্পর্শ না করে দূর থেকে তার সম্বন্ধে তথ্য আহরণ এবং তথ্য বিশ্লেষণের মাধ্যমে ওই বস্তু বা উপাদান সম্পর্কে ধারণা লাভ করা হয় , তাকে দূর সংবেদন বা রিমােট সেন্সিং ( Remote Sensing ) বলে ।

বুৎপত্তিগত অর্থঃ ইংরেজি ‘ Remote ‘ কথার অর্থ দূর ’ এবং ‘ Sense ‘ কথার অর্থ সংবেদন ’ বা ‘ অনুভূতি । অর্থাৎ , Remote Sensing কথার অর্থ হল দূর সম্বন্ধে অনুভূতি ।

প্রকারভেদঃ দূর সংবেদন বা রিমােট সেন্সিং ব্যবস্থা দুটি ভাগে বিভক্ত । যথা –
১.এয়ার ফটো বা বিমান চিত্রঃ বিমান , বেলুন বা উচ্চস্থানে সংস্থাপিত ক্যামেরার সাহায্যে ভূপৃষ্ঠের নির্দিষ্ট অংশের চিত্রগ্রহণ ব্যবস্থা ।
২. উপগ্রহ চিত্রঃ কৃত্রিম উপগ্রহে সংস্থাপিত সেন্সর গৃহীত ডিজিটাল পরিসংখ্যান ভূপৃষ্ঠথ নিয়ন্ত্রক কেন্দ্রগুলিতে সংরক্ষিত হয় এবং পরে তা বিভিন্ন পদ্ধতিতে বিশ্লেষণ ও ব্যবহার করা হয় ।

ব্যবহৃত উপগ্রহঃ দূর সংবেদন বা রিমােট সেন্সিং ব্যবস্থায় ব্যবহৃত বিভিন্ন কৃত্রিম উপগ্রহের মধ্যে উল্লেখযােগ্য হল –
১. ভারতের IRS ( Indian Remote Sensing Satellite ) সিরিজের কৃত্রিম উপগ্রহ সমূহ ( IRS- 1A , 1B , 10 , 1D , 1E / IRS – P , P , Pq , P. , P ; / Cartosat – 2 , 2A প্রভৃতি ) ।
২. আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের LANDSAT সিরিজের উপগ্রহসমূহ ( Landsat -1 , 2 , 3 , 4 , 5 , 6 এবং 7 ) । বর্তমানে এটি NOAA নামে পরিচিত ।
৩. ফ্রান্সের SPOT সিরিজের উপগ্রহ সমূহ ( SPOT – 1 , 2 , 3 , 4 , 5 ) ।