ভারতকে নদীমাতৃক দেশ বলা হয় কেন?

গঙ্গা , ব্রহ্মপুত্র , সিন্ধু , গােদাবরী , কৃষ্ণা , কাবেরী , নর্মদা , তাপী প্রভৃতি বড় বড় নদনদী ছাড়াও ভারতের বিভিন্ন অংশের ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে অসংখ্য ছােট ছােট নদ – নদী । ভারতের নদীগুলি বছরে গড়ে ১৮৬৯০০ কোটি ঘনমিটার জল বহন করে ( প্রধান নদীগুলি ৮৫ % , মাঝারি নদীগুলি ৭ % ও ছােটো নদীগুলি ৪ % এবং অন্যান্য জলধারা ৪ % জল বহন করে । নিচে ভারতকে নদীমাতৃক দেশ বলা হয় কেন তা আলোচনা করা হল  –
১. ছােট বড় মিলিয়ে অগণিত নদ – নদী সুদূর অতীত থেকে ভারতবাসীর জীবনধারার ওপর গভীরভাবে প্রভাব বিস্তার করে রয়েছে । শুধু হরপ্পা – মহেঞ্জোদাড়াের মতাে প্রাচীন সভ্যতা ( সিন্ধুনদ তীরবর্তী ) নয় বা এলাহাবাদ , বারাণসীর মতাে প্রাচীন ধর্মস্থান ( গঙ্গা তীরবর্তী ) নয় , আধুনিক ভারতেরও অধিকাংশ শহর , নগর , জনপদ গড়ে উঠেছে কোনও না কোনও নদীর তীরে ।

২. জীবিকার ক্ষেত্রে দেখা যায় , বর্তমানে দেশের শতকরা প্রায় ৬০ থেকে ৭০ জন অধিবাসী কৃষিকাজের ওপর নির্ভরশীল । দেশের খাদ্য – বস্ত্রের উৎপাদন এবং অর্থনীতিও বহুলাংশে কৃষিনির্ভর । এত গুরুত্বপূর্ণ যে কৃষিকাজ , তার অধিকাংশ কেন্দ্রীভূত দেশের বিস্তীর্ণ নদী উপত্যকাগুলিতে ।

২. সকল শিল্পের মেরুদণ্ড হিসাবে পরিচিত লৌহ – ইস্পাত শিল্প পরিচালনার ক্ষেত্রে প্রচুর পরিমাণে জলের প্রয়োজন হয় , যে কারণে নদীর পার্শ্ববর্তী অঞ্চলেই লৌহ – ইস্পাত শিল্প গড়ে ওঠে । এছাড়াও, অন্যান্য কতকগুলি গুরুত্বপূর্ণ শিল্প যেমন – কার্পাস বয়ন শিল্প , চিনি শিল্প , পাট শিল্প প্রভৃতি কৃষিভিত্তিক শিল্পগুলিও পরােক্ষভাবে নদীর ওপর নির্ভরশীল ।

৩. দেশের জলসেচ ব্যবস্থা পরিচালনার ক্ষেত্রে এক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে ভারতের নদ – নদীগুলি । ভারত মৌসুমি জলবায়ুর দেশ হওয়ায় বৃষ্টিপাতের অনিশ্চয়তা ও সীমাবদ্ধতার কারণে বিকল্প হিসাবে নদ – নদী থেকে সরাসরি বা খালের মাধ্যমে দেশের জলসেচ ব্যবস্থা পরিচালিত হয় ।

৪. ভারতের জলবিদ্যুৎ উৎপাদনের মূল উৎস হল নদ – নদীগুলি । উত্তর ভারতের বরফগলা জলে পুষ্ট নদ – নদীগুলির উচ্চ প্রবাহ থেকে এবং দক্ষিণ ভারতের খরস্রোতা নদ – নদীগুলি থেকে উৎপাদিত জলবিদ্যুৎ ভারতের শক্তি চাহিদার এক বিরাট অংশ পূরণ করে থাকে । 

৫. অভ্যন্তরীণ সুলভ জলপথে ভারতের পরিবহন ব্যবস্থা পরিচালিত হয় । উত্তর ভারতের নাব্য নদীপথগুলি পণ্য পরিবহনের ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখে । কেরালায় জলপথে পরিবহন তাৎপর্যপূর্ণ ।

৬. পানীয় জলের যােগানের এক বৃহৎ অংশ আসে ভারতের নদ – নদীগুলি থেকে । নদী উপকূলস্থ পৌরবসতিগুলিতে পার্শ্ববর্তী নদী থেকে জলসংগ্রহ করে তা পরিশ্রুত করে লোকালয়ে সরবরাহ করা হয় ।
ভারতের জীবনধারা এ দেশের নদ – নদীগুলির সঙ্গে এতই ওতপ্রােতভাবে জড়িত যে নদ – নদীগুলির বুকে কান পাতলে যেন ভারতেরই হৃদয়ের স্পন্দন শােনা যাবে । নদ – নদীগুলি যেন মায়ের মতাে সন্তানস্নেহে ভারতীয়দের লালন – পালন করে চলেছে , ভারতীয়দের জীবনধারাকে পরিপুষ্ট করে চলেছে । এজন্যই ভারতকে নদীমাতৃক দেশ বলে ।