পাট চাষের অনুকূল ভৌগােলিক পরিবেশ লেখ।

বাকলজাত তন্তুর মধ্যে পাট বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ স্থান দখল করে । পাট উষ্ণমণ্ডলের ফসল । দক্ষিণ – পূর্ব এশিয়ার মৌসুমী জলবায়ু অঞ্চলে পলি – গঠিত সমভূমিতে পাট চাষ সীমাবদ্ধ । পাট  চাষের অনুকূল ভৌগােলিক পরিবেশ দুই প্রকার । যথা – ( ক ) প্রাকৃতিক পরিবেশ এবং ( খ ) অর্থনৈতিক পরিবেশ । নিচে এগুলি বিস্তারিত আলোচনা করা হল –

( ক ) প্রাকৃতিক পরিবেশঃ পাট চাষের অনুকূল প্রাকৃতিক পরিবেশগুলি নিম্নরূপ –
১. জলবায়ুঃ পাট মৌসুমী জলবায়ু অঞ্চলের ফসল , তাই পাট উৎপাদনে প্রচুর উষ্ণতা ও বৃষ্টিপাতের প্রয়ােজন । (a) উষ্ণতাঃ পাটচাষে ২৫° সেলসিয়াসের বেশি গড় উষ্ণতা প্রয়ােজন । এর থেকে কম উষ্ণতায় পাট চাষ ভাল হয় না ।(b) বৃষ্টিপাতঃ ১৫০ থেকে ২০০ সেন্টিমিটার বৃষ্টিপাত পাট চাষের পক্ষে উপযােগী । বাতাসে প্রচুর পরিমাণে আর্দ্রতা থাকলে পাট গাছ দ্রুত বৃদ্ধি পায় ।
২. মৃত্তিকাঃ উর্বর ভারী দো – আঁশ মাটি ও পলিমাটি পাট চাষের আদর্শ । এইজন্য পলল গঠিত সমভূমিতেই অধিকাংশ পাট চাষ হয়ে থাকে ।
৩. ভূমিরূপঃ নিচু সমভূমিতে পাট চাষ ভাল হয় তাই পাট চাষ বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই প্লাবনভূমি ও ব – দ্বীপ অঞ্চলে হয় ।
৪. জলাশয়ঃ পাট চাষের জমির কাছে জলাশয় থাকা প্রয়ােজন । পাট গাছ কেটে জলাশয়ে কিছুদিন ভিজিয়ে রাখতে হয় । পাট পচানাে এবং পরিষ্কার জলে পাট পরিষ্কার করার উপর পাটের মান নির্ভর করে ।

(খ) অর্থনৈতিক পরিবেশঃ পাট চাষের অনুকূল অর্থনৈতিক পরিবেশগুলি নিম্নরূপ –
১. শ্রমিকঃ পাট চাষ থেকে আরম্ভ করে পাট কাটা , জলে ভেজানাে , আঁশ ছাড়ানাে প্রভৃতি কাজের জন্য প্রচুর সুলভ অথচ দক্ষ শ্রমিক আবশ্যক ।
২. মূলধনঃ বর্তমানে উন্নত পদ্ধতিতে পাট চাষ করার জন্য উচ্চ ফলনশীল বীজ , রাসায়নিক সার কীটনাশক ইত্যাদি উপচারসহ শ্রমিকের মজুরির জন্য যথেষ্ট মূলধনের প্রয়ােজন হয় ।
৩. পরিবহনঃ পাট বাণিজ্যিক ফসল ও শিল্পের কাঁচামাল হওয়ায় বিক্রয়কেন্দ্র ও শিল্পকেন্দ্রগুলির মধ্যে উন্নত যােগাযােগ ব্যবস্থা থাকা প্রয়ােজন ।
৪. চাহিদাঃ শিল্পকেন্দ্রগুলির চাহিদা বৃদ্ধি এবং স্থিতিশীল বাজারই কেবল পাট চাষের উন্নতি ঘটাতে পারে ।