গভীর সমুদ্রের সমভূমি কি?

সংজ্ঞাঃ মহীঢাল গভীর সমুদ্রের যেখানে এসে মিলিত হয়েছে , সেই অঞ্চলকে গভীর সমুদ্রের সমভূমি বলা হয় । এই অঞ্চলকে প্রকৃতপক্ষে ‘ সময় ভূমি ’ বলা চলে । ফলে কিছু কিছু অংশ বেশি উচু নিচু ও তরঙ্গায়িত । এই গভীর সমুদ্রের সমভূমিতে স্থানে স্থানে নিমজ্জিত শৈলশিরা লক্ষ করা যায় । দুটি সামুদ্রিক পাতের সংযােগস্থলে গুরুমণ্ডলের ম্যাগমা বেরিয়ে এসে জমাট বেঁধে এই সমভূমির সৃষ্টি করেছে । এই সমভূমি মূলত আগ্নেয়গিরি থেকে উৎক্ষিপ্ত বিভিন্ন লাভজাতীয় পদার্থ , জৈব ও অজৈব পদার্থ , নুড়ি , পাথর , কাদা ও বালি দ্বারা গঠিত । 

গভীরতা ও বিস্তৃতিঃ সমুদ্র তলদেশের বেশির ভাগ এলাকা এই অঞ্চলের অন্তর্গত । মহাসাগরগুলাের মােট বিস্তারের প্রায় ৭৫ শতাংশ জুড়ে গভীর সমুদ্রের সমভূমি অবস্থান করছে । এখানকার গভীরতা প্রায় ৩০০০-৬০০০ মিটার পর্যন্ত । এই গভীর সমুদ্রের সমভূমি বেশিরভাগ অঞ্চলের ২০ ° উত্তর অক্ষাংশ থেকে ৬০ ° উত্তর অক্ষাংশের মধ্যে বিরাজ করে । 

সামুদ্রিক সঞ্চয় ও অর্থনৈতিক গুরুত্বঃ গভীর সমুদ্রতলে সামুদ্রিক সঞ্চয়ের পরিমাণ বেশি । সমুদ্রের এই অংশে বিভিন্ন ধরনের জৈব ও অজৈব পদার্থ , নুড়ি , পাথর , কাদা ও বালি লক্ষ করা যায় । এ ছাড়াও মৃত প্রবাল – কটি ও জলমগ্ন আগ্নেয়গিরির নির্গত পদার্থসমূহ সঞ্চিত হতে থাকে । মূলত ব্যাসাল্ট শিলায় গঠিত গভীর সমুদ্র সমভূমির বিস্তৃতি ভারত ও প্রশান্ত মহাসাগরের তুলনায় অনেক বেশি ।