লৌহ ইস্পাত শিল্পকে সকল শিল্পের মূল বা মেরুদন্ড বলা হয় কেন?

শিল্প একটি প্রযুক্তিনির্ভর জটিল প্রক্রিয়া, যার জন্য প্রাথমিকভাবে কিছু অত্যাবশ্যকীয় উপাদান প্রয়োজন হয়; এগুলি হলো পর্যাপ্ত কাঁচামালের যোগান, উপযুক্ত পরিকাঠামো, আধুনিক প্রযুক্তি, দক্ষ ও সুলভ শ্রমিক, উন্নত পরিবহন, বিশাল বাজার প্রভৃতি । এই সকল উপাদানগুলি সংশ্লিষ্ট শিল্পের স্থাপন ও উন্নতিকে নিয়ন্ত্রণ করে । এখানে আমাদের মনে রাখতে হবে যে, উল্লিখিত উপাদানগুলির মধ্যে পরিকাঠামো ও পরিবহন এই দুটি শর্তের প্রধান উপকরণ হলো লৌহ-ইস্পাত, যা উৎপাদিত হয় লৌহ-ইস্পাত শিল্প থেকে । অতএব, যে কোনও শিল্পের স্থাপন ও উন্নতির জন্য লৌহ-ইস্পাত তথা লৌহ-ইস্পাত শিল্পের ভূমিকা অপরিসীম । তাই লৌহ ইস্পাত শিল্পকে সকল শিল্পের মূল বা মেরুদন্ড বলা হয় ।
সামান্য আলপিন হইতে শুরু করে গােলাবারুদ , বৃহদায়তন জাহাজ , রেল – ইঞ্জিন , মােটরগাড়ী , মেসিন টুল এমনকি আসবাবপত্র , বাসনপত্র প্রভৃতিও লৌহ এবং ইস্পাত দ্বারাই নির্মিত হয়ে থাকে । লৌহ ও ইস্পাতের ন্যায় এত ব্যাপক ব্যবহার অন্য কোন ধাতুর নেই বললেই চলে । যে সকল বিশেষ গুণের জন্য লৌহ ইস্পাতের ব্যবহার এত ব্যাপক হয়েছে সেগুলি নিম্নে আলােচনা করা হল –
১. প্রচণ্ড দৃঢ়তা ও শক্তিশালিতাঃ লৌহ ও ইস্পাতের প্রচণ্ড দৃঢ়তা ও শক্তিশালিতার জন্য এটি নির্মাণকার্যে এবং যান্ত্রিক ইঞ্জিনীয়ারিং শিল্পে একান্ত অপরিহার্যরূপে গণ্য হয়ে থাকে । এইজন্য লৌহ ও ইস্পাত গৃহাদি নির্মাণে , পূর্ত ইঞ্জিনীয়ারিং ও সিমেন্ট কংক্রিট ঢালাই – এর কাজে বেষ্টনকারী বস্তু ( Girder ) -রূপে ব্যবহার করা হয়ে থাকে । রেলপথ নির্মাণে , শিল্প – কারখানা স্থাপনে , শোধনাগার নির্মাণে , পাইপ , বয়লার ও অন্যান্য ভারী শিল্পদ্রব্য প্রস্তুতে এটি ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয় ।
২. প্রচণ্ড স্থিতিস্থাপকতাঃ অন্যান্য ধাতু অপেক্ষা ইস্পাত অনেক বেশী পীড়ন অবিকৃত অবস্থা সহ্য করতে সক্ষম । সেইজন্য বিভিন্ন মজবুত দ্রব্য , যেমন , যন্ত্রপাতি , মােটরগাড়ী , ইঞ্জিন ও রেলগাড়ী , জাহাজ প্রভৃতি নির্মাণে এটি ব্যবহৃত হয়ে থাকে ।
৩. অপেক্ষাকৃত অধিক নমনীয়তাঃ অধিক নমনীয়তার জন্য এটি বার ( Bar ) , টিউব , সরু তার প্রভৃতির আকারে অথবা চাদররূপে ( Sheet ) গুটিয়ে রাখা যায় । ফলে বিভিন্ন গৌণ – শিল্পের শিল্প ঐব্যরূপে জটিল যন্ত্রাংশ প্রস্তুতে , যন্ত্রপাতি নির্মাণে এবং গৃহস্থালীর প্রয়ােজনীয় তৈজসপত্র নির্মাণে এটি ব্যবহার করা হয় ।
৪. স্বল্প খরচ এবং সহজ উৎপাদনঃ ভূপৃষ্ঠে লৌহ অত্যন্ত ব্যাপকভাবে পাওয়া যায় ( ভূ – ত্বকের শতকরা প্রায় ৫ ভাগ লৌহ দ্বারা গঠিত ) এবং এটি এত সহজে খনি থেকে সংগ্রহ করা হয়, যার ফলে এটি সর্বাপেক্ষা সুলভ ধাতুরূপে পরিগণিত হয়েছে । লৌহের মূল্য টিন অপেক্ষা শতকরা ২০ ভাগ এবং তাম্র , অ্যালুমিনিয়ম অথবা দস্তার মূল্য অপেক্ষা ৪ ভাগ কম । লৌহের প্রাচুর্য এবং স্বল্প মূল্যের জন্য এর ব্যবহার এত ব্যাপক ।
৫. ধাতুর মিশ্রণ যােগ্যতাঃ বিভিন্ন প্রকার ধাতুর সাথে লৌহ সহজেই মিশ্রিত করা যায় এবং এইভাবে বিশেষ কাজে বিশেষ ধরনের সংকর ইস্পাত ( Alloy Steel ) প্রস্তুত করে ব্যবহার করা হয় ।


“লৌহ ইস্পাত শিল্পকে সকল শিল্পের মূল বা মেরুদন্ড বলা হয় কেন?”-এ 2-টি মন্তব্য

মন্তব্য করা বন্ধ রয়েছে।