মানচিত্র (Map):

☻ব্যুৎপত্তিগত অর্থঃ ল্যাটিন শব্দ “Mappa” থেকে ম্যাপ (Map) কথাটি এসেছে, যার অর্থ কাপড় । সম্ভবত প্রাচীনকালে কাপড় বা তুলোর কাগজের উপরে মানচিত্র আঁকা হতো বলে এরূপ নামকরণ করা হয়েছে ।

সংজ্ঞা: মান+চিত্র=মানচিত্র; অর্থাৎ, নির্দিষ্ট মান বা স্কেলে অঙ্কিত চিত্রকে মানচিত্র (Map) বলে ।

অন্যভাবে বলা যায় যে, সমগ্র পৃথিবী এর কোনো অংশবিশেষকে সঠিক দিক অনুসারে নির্দিষ্ট স্কেলে সমতল কাগজের উপর অক্ষরেখা ও দ্রাঘিমারেখা দ্বারা সৃষ্ট ছকের ভিতরে উপস্থাপন করা হলে, তাকে মানচিত্র (Map) বলা হয় ।

বৈশিষ্ট্যঃ মানচিত্র এর বৈশিষ্ট্যগুলি হলো নিম্নরূপ –

  • ক) মানচিত্রের একদম উপরিভাগে মানচিত্র ও বিষয়সংক্রান্ত শিরোনাম দেওয়া থাকে ।
  • খ) মানচিত্রের দিকনির্দেশ এর একটি অত্যন্ত আবশ্যিক বিষয় । মূলত মানচিত্রের উপরদিককে উত্তরদিক (N) হিসাবে ধরে দিক নির্দেশিত থাকে ।
  • গ) প্রত্যেক মানচিত্রে একটি সুনির্দিষ্ট স্কেল অবশ্যই থাকবে ।
  • ঘ) মানচিত্র অঙ্কনের ক্ষেত্রে অক্ষরেখা ও দ্রাঘিমারেখা অতি প্রয়োজন ।
  • ঙ) মানচিত্রের বিষয়াবলীকে বিভিন্ন চিহ্ন, সংকেত ও রঙের সাহায্যে উপস্থাপন করা হয় ।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.