নদীমঞ্চ বা নদীসোপান কি?

সংজ্ঞাঃ নদী উপত্যকার দুই তীর ধাপে ধাপে নেমে এসে নদীর দুই পাশে মঞ্চের মত অবস্থান করলে তাকে নদীমঞ্চ বা নদীসোপান (River Terrace) বলে ।

উদাঃ গঙ্গা, তিস্তা, ব্রক্ষ্মপুত্র প্রভৃতি নদ-নদীতে এরূপ নদীমঞ্চ দেখা যায় ।

উৎপত্তিঃ স্থলভাগ এবং সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতার তারতম্যের জন্য নদীর দৈর্ঘ্য বরাবর পার্শ্বচিত্রের সঙ্গে সঙ্গে আড়াআড়িভাবে গঠিত পার্শ্বচিত্রেরও অর্থাৎ নদী উপত্যকারও পরিবর্তন হয় । নদী উপত্যকা সরু থেকে ক্রমশ চওড়া হয়ে প্রবীণত্ব লাভ করে । কিন্তু স্থলভাগ ও সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতার তারতম্যের ফলে নদী পুনর্যৌবন লাভ করে তার প্রবীণ উপত্যকাকে পুনরায় কর্তিত করতে থাকে । ফলে নদীর নতুন উপত্যকা প্রবীণ উপত্যকা অপেক্ষা অধিক গভীর হয় এবং ঐ প্রবীণ উপত্যকা নতুন উপত্যকার দুই তীরে মঞ্চের মত অবস্থান করতে থাকে । সময়ের সাথে সাথে একাধিকবার নদীর পুনর্যৌবনলাভ হলে নদীর দুই তীরে একাধিক ধাপবিশিষ্ট নদীমঞ্চ সৃষ্টি হয় ।

বৈশিষ্ট্যঃ নদীমঞ্চ বা নদীসোপান – এর বৈশিষ্ট্যগুলি হল নিম্নরূপ –
ক) একটি নদী উপত্যকায় একাধিক নদীমঞ্চ দেখা যায় ।
খ) নদীতে নদীমঞ্চের সংখ্যা দেখে বোঝা যায় সেই অঞ্চলটি মোট কতবার উন্নত (Uplift) হয়েছে ।

নদীমঞ্চ বা নদীসোপান (River Terrace)
নদীমঞ্চ বা নদীসোপান (River Terrace)