পরবর্তী নদী (Subsequent River):

☻সংজ্ঞাঃ অনুগামী নদী সৃষ্টি হয়ে প্রবাহিত হওয়ার পর সংশ্লিষ্ট অঞ্চলে ক্ষয়কার্য চালিয়ে গৌণ ঢাল সৃষ্টি করে । এমতাবস্থায় যে সকল নদী কঠিন শিলাস্তর এড়িয়ে দুর্বল শিলাস্তরের উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়ে অনুগামী নদীর সাথে সমকোণে বা প্রায় সমকোণে মিলিত হয়, তাদের পরবর্তী নদী (Subsequent River) বলে ।

উদাঃ মূল অনুগামী নদী যমুনার উপনদী অসন (Asan) হলো একটি আদর্শ পরবর্তী নদী ।

বৈশিষ্ট্যঃ  পরবর্তী নদী – র বৈশিষ্ট্যগুলি হলো নিম্নরূপ –
১. পরবর্তী নদীগুলি নরম শিলার উপর দিয়ে প্রবাহিত হয় বলে নদী উপত্যকাগুলি যথেষ্ট চওড়া প্রকৃতির হয় ।
২. এইপ্রকার নদীগুলি মূলত: কঠিন শিলাস্তরগুলি এড়িয়ে দূর্বল শিলাস্তরের আয়াম (Strike) বরাবর প্রবাহিত হয় ।
৩. অপেক্ষাকৃত কঠিন শিলাস্তরগুলি শৈলশিরা রূপে পরবর্তী নদীগুলির উভয় পাশে সমান্তরালভাবে অবস্থান করে ।
৪. উপত্যকাগুলি আয়াম বরাবর গঠিত হয় বলে এদের আয়াম উপত্যকা (Strike Vale) বলে ।
৫. পরবর্তী নদীগুলি সংশ্লিষ্ট অঞ্চলের গঠনের সাথে সামঞ্জস্য রেখে সৃষ্টি হয় ও প্রবাহিত হয় ।

4 thoughts on “পরবর্তী নদী (Subsequent River):

  1. Pingback: নদীর শ্রেণীবিভাগ (Classification of River): – bhoogolok.com

  2. Pingback: অনুগামী নদী (Consequent Stream): – bhoogolok.com

  3. Pingback: নদীগ্রাস (River Capture): | bhoogolok.com

  4. Pingback: জাফরিরূপী জলনির্গম প্রণালী (Trellised Drainage Pattern): | bhoogolok.com

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.