পরবর্তী নদী (Subsequent River):

☻সংজ্ঞাঃ অনুগামী নদী সৃষ্টি হয়ে প্রবাহিত হওয়ার পর সংশ্লিষ্ট অঞ্চলে ক্ষয়কার্য চালিয়ে গৌণ ঢাল সৃষ্টি করে । এমতাবস্থায় যে সকল নদী কঠিন শিলাস্তর এড়িয়ে দুর্বল শিলাস্তরের উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়ে অনুগামী নদীর সাথে সমকোণে বা প্রায় সমকোণে মিলিত হয়, তাদের পরবর্তী নদী (Subsequent River) বলে ।

উদাঃ মূল অনুগামী নদী যমুনার উপনদী অসন (Asan) হলো একটি আদর্শ পরবর্তী নদী ।

বৈশিষ্ট্যঃ  পরবর্তী নদী – র বৈশিষ্ট্যগুলি হলো নিম্নরূপ –
১. পরবর্তী নদীগুলি নরম শিলার উপর দিয়ে প্রবাহিত হয় বলে নদী উপত্যকাগুলি যথেষ্ট চওড়া প্রকৃতির হয় ।
২. এইপ্রকার নদীগুলি মূলত: কঠিন শিলাস্তরগুলি এড়িয়ে দূর্বল শিলাস্তরের আয়াম (Strike) বরাবর প্রবাহিত হয় ।
৩. অপেক্ষাকৃত কঠিন শিলাস্তরগুলি শৈলশিরা রূপে পরবর্তী নদীগুলির উভয় পাশে সমান্তরালভাবে অবস্থান করে ।
৪. উপত্যকাগুলি আয়াম বরাবর গঠিত হয় বলে এদের আয়াম উপত্যকা (Strike Vale) বলে ।
৫. পরবর্তী নদীগুলি সংশ্লিষ্ট অঞ্চলের গঠনের সাথে সামঞ্জস্য রেখে সৃষ্টি হয় ও প্রবাহিত হয় ।

4 comments

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s