নদীগ্রাস (River Capture):

☻সংজ্ঞাঃ অধিক মস্তকক্ষয় দ্বারা একটি পরবর্তী নদী জলবিভাজিকার অপর দিকের দুর্বল পরবর্তী নদীর মধ্য দিয়ে অপর অনুগামী নদীকে গ্রাস করলে, তাকে নদীগ্রাস (River Capture) বলে ।

প্রক্রিয়াঃ সাধারনতঃ দেখা যায়, জলবিভাজিকার দুটি ঢালে দুটি অনুগামী নদী প্রবাহিত হয় । এই দুই অনুগামী নদীর সঙ্গে পরবর্তী নদী মিলিত হয় । জলবিভাজিকার যেদিকের পরবর্তী নদীগুলি বেশী শক্তিশালী সেইদিকেই নদীর ক্ষয়সাধন বেশী হয় । অনেক সময় শক্তিশালী নদীটি উৎসের দিকে ক্ষয় করে ক্রমশঃ তার গতিপথের জলবিভাজিকাটিকে একেবারে ক্ষয় করে ফেলে । তখন জলবিভাজিকার অপর দিকের দুর্বল ও অনুগামী নদীটি এই প্রবল নদীখাতের মধ্যে এসে পড়ে । এর ফলে শক্তিশালী নদীটির উপত্যকার মধ্য দিয়েই সমস্ত জলস্রোত প্রবাহিত হয় এবং দুর্বল নদীটির উপত্যকা ক্রমশঃ শুস্ক নদী উপত্যকায় পরিনত হয় । এভাবেই নদীগ্রাস সৃষ্টি হয়ে থাকে ।

নদীগ্রাস (River Capture)

নদীগ্রাস (River Capture)

উদাঃ তিব্বতের সাংপো নদে, তিস্তা নদীতে নদীগ্রাস দেখা যায় ।

বৈশিষ্ট্যঃ  নদীগ্রাস – এর বৈশিষ্ট্যগুলি হলো নিম্নরূপ –
ক) নদীগ্রাস অঞ্চলে অর্থাৎ প্রবল পরবর্তী নদী ও দুর্বল অনুগামী নদীর মিলনস্থলে নদীবাঁক সৃষ্টি হয়, একে নদীগ্রাসের বাঁক বলে ।
খ) নদীগ্রাসের ঠিক নীচে দুর্বল অনুগামী নদী উপরের অংশ থেকে বিচ্ছিন্ন হয় ।
গ) নদীগ্রাস সৃষ্টির ফলে প্রবল অনুগামী নদীতে জলের পরিমান ও স্রোতের গতিশক্তি – উভয়ই অনেকাংশে বেড়ে যায় ।
ঘ) নদীগ্রাসে দুর্বল অনুগামী নদীর কিছু অংশ প্রবল পরবর্তী নদীর মধ্যে প্রবাহিত হয় ।

One thought on “নদীগ্রাস (River Capture):

  1. Pingback: অসংগত জলনির্গম প্রণালী (Barbed Drainage Pattern): | bhoogolok.com

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.