এক্সোস্ফিয়ার (Exosphere):

সংজ্ঞাঃ থার্মোস্ফিয়ারের উর্দ্ধে প্রায় ১৫০০ কিমি পর্যন্ত বায়ুস্তরকে এক্সোস্ফিয়ার(Exosphere) বলা হয় ।

বিস্তারঃ এক্সোস্ফিয়ারের বিস্তার  প্রায় ৫০০-১৫০০ কিমি ।

বৈশিষ্ট্যঃ এক্সোস্ফিয়ার – এর বৈশিষ্ট্যগুলি হলো নিম্নরূপ –
(ক) এই স্তরের বায়ু এত হালকা যে এর অস্তিত্ব প্রায় বোঝাই যায় না ।
(খ) এই স্তরে হিলিয়াম ও হাইড্রোজেন গ্যাসের প্রাধান্য দেখা যায় ।
(গ) কৃত্রিম উপগ্রহ, স্পেস স্টেশন প্রভৃতি এই স্তরে অবস্থান করে ।
(ঘ) এই স্তরে উষ্ণতা বৃদ্ধি পায়, তবে তা দ্রুত নয় ।

3 thoughts on “এক্সোস্ফিয়ার (Exosphere):

  1. Pingback: ম্যাগনেটোস্ফিয়ার (Magnetosphere): | bhoogolok.com

  2. Pingback: উচ্চতা ও উষ্ণতার তারতম্য অনুসারে বায়ুমন্ডলের স্তরবিন্যাস (Atmospheric Stratification according to the variation in Height and Warmth): | bhoogolok.com

  3. Pingback: উচ্চতা ও উষ্ণতার তারতম্য অনুসারে বায়ুমন্ডলের স্তরবিন্যাস (Atmospheric Stratification according to the variation in Height and Warmth): | bhoogolok.com

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.