বায়ুমন্ডল (Atmosphere):

সংজ্ঞাঃ ভূপৃষ্ঠ থেকে ঊর্ধ্বে যে অদৃশ্য গ্যাসের আবরণ পৃথিবীকে বেষ্টন করে আছে, তাকে বায়ুমণ্ডল (Atmosphere) বলে । বায়ুমণ্ডল বলতে পৃথিবীকে চারপাশে ঘিরে থাকা বিভিন্ন গ্যাস মিশ্রিত স্তরকে বোঝায়, যা পৃথিবী তার মাধ্যাকর্ষণ শক্তি দ্বারা ধরে রাখে । একে আবহমণ্ডলও বলা হয় । বায়ুমণ্ডলকে চোখে দেখা যায় না, শুধু এর অস্তিত্ব আমরা অনুভব করতে পারি । পৃথিবীর মাধ্যাকর্ষণ শক্তির প্রভাবে এই বায়ুমণ্ডল পৃথিবীর আবর্তনের সঙ্গে আবর্তিত হয় ।

বিস্তারঃ
সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে উপরের দিকে মোটামুটিভাবে প্রায় ১০০০০ কিমি পর্যন্ত বায়ুমন্ডলের অস্তিত্ব আছে বলে মনে করা হয় ।

বৈশিষ্ট্যঃ
  বায়ুমন্ডল – এর বৈশিষ্ট্যগুলি হলো নিম্নরূপ –
ক) 
বায়ুমন্ডল সূর্য থেকে আগত অতিবেগুনি রশ্মিকে ওজন স্তর দ্বারা শোষণ করে পৃথিবীতে জীবের অস্তিত্ব রক্ষা করে ।
খ) 
বায়ুমন্ডল তাপ ধরে রাখার মাধ্যমে (গ্রীন হাউজ প্রক্রিয়া) ভূপৃষ্ঠকে উওপ্ত করে এবং দিনের তুলনায় রাতের তাপমাত্রা হ্রাস করে পৃথিবীর উষ্ণতার ভারসাম্য বজায় রাখতে সাহায্য করে।
গ) 
বাতাসের পরিমাণ ও বায়ুমন্ডলীয় চাপ বিভিন্ন স্তরে বিভিন্ন রকম হয় ।
ঘ) 
স্থলজ উদ্ভিদ ও স্থলজ প্রাণীর বেঁচে থাকার জন্য উপযুক্ত বাতাস কেবল পৃথিবীর বায়ুমন্ডলেই পাওয়া যায় ।
ঙ) 
বায়ুমন্ডলের ভর প্রায় ৫×১০১৮ কেজি ।

10 comments

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s