শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সংজ্ঞাঃ মরু অঞ্চলে সারা বছর ধরে বিভিন্ন সময়ে  বিভিন্ন দিক থেকে বাতাস প্রবাহিত হলে উন্মুক্ত শিলাখন্ডেরও বিভিন্ন দিক ক্ষয়প্রাপ্ত হয়ে মসৃণ ও চকচকে হয় । এরকম বহু মসৃণ তলবিশিষ্ট ভুমিরূপকে ড্রেইকান্টার (Dreikanter) বলে ।

উদাঃ সাহারা মরুভূমিতে অনেক ড্রেইকান্টার দেখা যায় ।

বৈশিষ্ট্যঃ ড্রেইকান্টার – এর বৈশিষ্ট্যগুলি হলো নিম্নরূপ –
ক) এটি বহু মসৃন তল বিশিষ্ট হয় ।
খ) বায়ুর অবঘর্ষ প্রক্রিয়ার ফলে এটি সৃষ্টি হয় ।

Related Posts

One thought on “ড্রেইকান্টার (Dreikanter):

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *